স্মার্টফোনের জন্য পাঁচটি অ্যাপ সবচেয়ে বেশি ক্ষতির কারণ হতে পারে

পাঁচটি অ্যাপ

স্মার্টফোনের জন্য পাঁচটি অ্যাপ সবচেয়ে বেশি ক্ষতির কারণ হতে পারে

স্মার্টফোনে অ্যাপ থাকবে এটাই স্বাভাবিক । এই অ্যাপ উপকারের পাশাপাশি ক্ষতিও করে থাকে ।আজকে আমরা আলোচনা করব এমন পাঁচটি অ্যাপ নিয়ে , যে পাঁচটি  অ্যাপ স্মার্টফোনের জন্য সবচেয়ে বেশি ক্ষতির কারণ হতে পারে !

নতুন স্মার্ট ফোন কিনেছেন । বাসায় অথবা অফিসে ফ্রি ওয়াইফাই, আপনি ভাবছেন আপনার হাতের স্মার্টফোনটি নানারকম অ্যাপস দিয়ে সাজিয়ে নিবেন ।

গুগল প্লে স্টোরের হাজার হাজার অ্যাপ আপনাকে হাতছানি দিয়ে ডাকছে ! কিন্তু আপনি কি জানেন এই রকম হাজার হাজার অ্যাপের মধ্যে কিছু কিছু ক্ষতিকর অ্যাপ আছে, যা আপনার মোবাইলের জন্য শুধু ক্ষতি করই নয় সর্বনাশ ও ডেকে আনতে পারে।

এই পাঁচটি জনপ্রিয় অ্যাপ , যে অ্যাপগুলো আপনার অজান্তেই আপনার অনেক ক্ষতি করতে পারে ।আমরা আপনাকে পরামর্শ দিব এই অ্যাপ গুলো ডাউনলোড বা ইন্সটল করা থেকে বিরত থাকার জন্য।আর এই এই অ্যাপ গুলো ডাউনলোড বা ইন্সটল করা থেকে বিরত থাকাই বুদ্ধিমানের কাজ বলে আমরা মনে করি ।

Android App

এই পাঁচটি অ্যাপ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনার পূর্বে আমরা জেনে নেই এই ধরনের অ্যাপ গুলো আমাদের কি কি ক্ষতি করতে পারে ?

  • দ্রুত চার্জ ফুরিয়ে যেতে পারে 
  • মোবাইলের ডিসপ্লে সমস্যা হতে পারে 
  • মোবাইল ধীর গতির হয়ে যেতে পারে
  • মোবাইল হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে
  •  অপ্রয়োজনীয় তথ্য মোবাইলে ইন্সটল হতে পারে
  •  আরো নানা রকম অজানা সমস্যা দেখা দিতে পারে  

এইবার আমরা আলোচনা করব যে পাঁচটি অ্যাপ আমাদের অজান্তেই আমাদের মোবাইলের নানা রকম ক্ষতি করে থাকে। 

স্মার্টফোনের জন্য পাঁচটি অ্যাপ , Ram Buster

০১) র‍্যাম বুস্টারঃ- Ram Buster

আমরা অনেকেই ভেবে থাকি এই র‍্যাম বুস্টার অ্যাপ টি  আমাদের মোবাইলের গতি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে থাকে । আসলেই ব্যাপারটি মোটেও সঠিক নয় ।

আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করেন, আপনি হয়তো র‍্যাম বুস্টার বা টাস্ক কিলার অ্যাপ ব্যবহার করার বিষয়ে পরামর্শ শুনে থাকতে পারেন । 

বুস্টারগুলি সত্যিই কাজ করে কিনা আপনার মনে নিশ্চয়ই এই ধরনের প্রশ্ন জাগতে পারে । 

আপনার ফোনে এই ধরনের অ্যাপের প্রয়োজন নেই এবং এগুলো ব্যবহার করলে আপনার ফোনের কর্মক্ষমতা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

এবার দেখা যাক কেন ?

আমাদের অবশ্যই বুঝতে হবে র‍্যাম কি এবং আপনার ফোনের জন্য এর উদ্দেশ্য কি । RAM মানে র‍্যান্ডম অ্যাক্সেস মেমোরি । কম্পিউটার এবং ফোন দ্বারা ব্যবহৃত একটি দ্রুত কিন্তু গতিশীল ধরনের স্টোরেজ ।

আমরা দেখেছি যে অ্যান্ড্রয়েড এর RAM বুস্টার এবং টাস্ক কিলারগুলি সর্বোত্তমভাবে বেহুদা এবং সবচেয়ে খারাপভাবে ডিভাইসের কার্যকারিতা ব্যাহত করতে পারে। 

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমকে তার নিজের মেমোরি পরিচালনা করে তার কাজ করতে দেওয়া ভাল। 

বিনামূল্যে র‍্যাম বুস্টার থাকার ফলে অ্যান্ড্রয়েড এর কর্মক্ষমতা উন্নত হয় না; মেমরিতে সংরক্ষিত এই অ্যাপস টি যত দ্রুত মুছে ফেলবেন তত  আপনি সেরা ফলাফল পাবেন।

০২) ব্যাটারি সেভারঃ- Battery Saver

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে, আমি গুগল প্লে স্টোরে প্রায় ৫ টি  জনপ্রিয় “ব্যাটারি সেভার” অ্যাপ ডাউনলোড এবং পরীক্ষা করে দেখেছি।  

আমি খুবই কৌতূহলী ছিলাম যে এই অ্যাপগুলি কতটা পার্থক্য তৈরি করতে পারে । যখন আমার মোবাইল এর শেষ ২০ শতাংশ ব্যাটারি লাইফ ছিল তখন এই ব্যাটারি সেভার অ্যাপগুলি ব্যাটারির লাইফ নিয়ে চিন্তিত হতে শুরু করে এবং যতটা সম্ভব রানটাইম বন্ধ করতে চেষ্টা  করতে থাকে ।

ব্যাটারি সেভার অ্যাপগুলি অ্যান্ড্রয়েডের নিজস্ব ডোজ মোড এবং অ্যাপ স্ট্যান্ডবাই মোডগুলি পরিবর্তন করতে চেষ্টা করতে থাকে , যা এই অন্তর্নির্মিত বৈশিষ্ট্যগুলিকে আরও আক্রমণাত্মক করে তোলে। 

এটি মোবাইল এর কার্যক্ষমতার উপরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে থাকে । আমি এর ল্যাগ, পারফরম্যান্সের সমস্যা এবং ক্র্যাশ সব কিছুই লক্ষ্য করেছি, মাঝে মাঝে এই অ্যাপগুলিকে যা গ্রহণযোগ্য বলে মনে করা হয় তার বাইরের সেটিংসকে ঠেলে দিচ্ছি ।

আপনার যদি অ্যান্ড্রয়েডের সাম্প্রতিক সংস্করণ চালানো একটি হ্যান্ডসেট থাকে, আমার পরামর্শ হল আপনি এর নিজস্ব ডোজ মোড এবং অ্যাপ স্ট্যান্ডবাই বৈশিষ্ট্যগুলির সাথে থাকুন। 

এগুলি ব্যাটারির আয়ু, কর্মক্ষমতা এবং স্থিতিশীলতার ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য একটি ভাল কাজ করে থাকে।

০৩) ইউসি ব্রাউজারঃ Uc Browser

ইউসি ব্রাউজার টি চীনা প্রতিষ্ঠান আলিবাবার মালিক জ্যাক মা এর ।আপনি যদি আপনার গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকেন তাহলে আমাদের পরামর্শ হলো আপনি কখনোই ইউসি ব্রাউজার টি ব্যবহার করবেন না । 

এই ব্রাউজারটির ভালো ও খারাপ দিক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন এখান থেকে ।  

ট্রু কলারঃ- True Caller

০৪) ট্রু কলারঃ- True Caller

ট্রু কলার অ্যাপ টি ব্যবহার করার পক্ষে ও বিপক্ষে পরামর্শ এর অভাব নেই । আমি নিজেই এর ভাল খারাপ দুটো কারন জানতে অনেক চেষ্টা করেছি ।

এই ট্রু কলার অ্যাপ টি আপনাকে সারা পৃথিবী তে সব ধরনের ফোন নাম্বার সহ এর ব্যাবহার কারীর নাম, কোন দেশের নম্বর, এমন কি ব্যাবহার কারীর ছবি সহ নানা ডাটা সরবরাহ করে থাকে । এবং অ্যাপ নির্মাতারা এগুলো নিয়মিত আপডেট করে থাকে ।

ট্রু কলার অ্যাপ টি নতুন স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য চমৎকার এক যাদুর মতোই লাগবে । এই অ্যাপ এর মাধ্যমে তারা যে কোন অজানা মোবাইল নং এর ব্যবহারকারীর নাম এবং বিবরণ দেখতে পারে। 

এখানে প্রশ্ন উঠতে পারে যে কিভাবে Truecaller (ট্রু কলার) তাদের ডাটাবেসে এই নম্বর টি পেয়ে থাকে ?

ট্রু কলার প্রতিষ্ঠান কি প্রতিটি দেশের সংশ্লিষ্ট টেলিকম প্রদানকারীর কাছ থেকে কোন ডাটা বিবরণ পাচ্ছে? এটা একেবারেই অসম্ভব বলে মনে হয়, কারণ কোন টেলিকম প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান যে কোন তৃতীয় পক্ষের নিকট তাদের গ্রাহকের তথ্য বা পরিচয় প্রকাশ করার জন্য অনুমোদিত নয়।

তাহলে তারা কিভাবে এই যাদুকরী কাজ টি করতে সক্ষম?  

আপনি যখন এই অ্যাপটি আপনার মোবাইল এ ব্যবহার করেন তখন এটি আপনার মোবাইলের যোগাযোগ বই (Contact List), ফেসবুক প্রোফাইল এবং রক্ষিত বিভিন্ন সোর্স থেকেই সম্পূর্ণ ডাটা গুলো কালেকশন করে থাকে এবং এই ডাটা গুলো  তাদের ডাটাবেসে সংরক্ষণ করে। এই যে ধরা খেল ! এখন কেমন লাগল বলুন তো ?

যদি আপনি আপনার ডাটা আপনার কাছে ব্যক্তিগত রাখতে চান, আমরা সুপারিশ করবো ট্রু কলার অ্যাপ টি “Truecaller” ব্যবহার করবেন না।

০৫) ফাস্ট  চার্জিং অ্যাপঃ-  First Charging App

দ্রুত চার্জিং এমন একটি বৈশিষ্ট্য যা আপনার ডিভাইসকে সাধারণত যে সময় লাগবে তার একটি ভগ্নাংশে চার্জ করতে দেয়। আপনার ফোন বা অন্যান্য ডিভাইস দ্রুত চার্জিং সমর্থন করে কিনা তা চার্জিং সার্কিটে এর মাধ্যমে বিলড ইন এর সময় ঠিক দেয়া হয় ।

অর্থাৎ আপনার ডিভাইসটি যদি কেবল ফাস্ট চার্জিং হ্যান্ডেল করার জন্য ডিজাইন করা হয়ে থাকে তবেই এমন শক্তি টানতে পারবে। 

আপনার ডিভাইসটিকে দ্রুত চার্জিং বিভিন্ন অ্যাপ এর সাথে সংযুক্ত করেন তাহলে এটি কখনো দ্রুত চার্জ হবে না। আপনার স্মার্টফোনটি আস্তে আস্তে চার্জ হওয়ার বিভিন্ন রকম  কারণও থাকতে পারে এবং আপনাকে এগুলিও বিবেচনা করতে হবে।

দ্রুত চার্জিং অ্যাপগুলি সব সময় কৌশল গত ভাবে কাজ করে থাকে । আপনি একটু সঠিক ভাবে খেয়াল করলে দেখবেন যে এই অ্যাপগুলি আপনার ডিভাইসে কখনোই পাওয়ার ইনপুট বাড়ায় না 

দ্রুত চার্জিং অ্যাপগুলি ব্যাটারি ক্ষয় কমানোর জন্য তারা শুধুমাত্র বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য বন্ধ করে দেয়। 

যদি আপনার ডিভাইস দ্রুত চার্জিং সমর্থন করে থাকে অথবা না করে থাকে আমাদের পরামর্শ থাকবে আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনগুলির কোনটি ইনস্টল তো করবেনই না বরং ইনস্টল করা থাকলে এখনি আন ইনস্টল  করুন । 

আমাদের পরামর্শঃ-

আপনার মোবাইল এ ভাল ফলাফল পেতে হলে অবশ্যই অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ গুলো এখনি মুছে ফেলুন । সেটিং এ গিয়ে যা যা অপ্রয়োজনীয় সেগুলো অফ মোডে রাখুন । 

যখন আপনার মোবাইল টি ধীর গতির মনে হবে তখন মাঝে মাঝে আপনার মোবাইল টি রিবোট বা একেবারে অন অফ করুন । এতে করে আপনার মোবাইল টির গতি বৃদ্ধি পাবে । 

সাজেশনঃ- 

ফ্যাক্টরি রিসেট দিলেও মাঝে মাঝে মোবাইল ঠিক হয়ে যায় ।

আরও জানতে পড়তে থাকুন

আপনার ফোনে ফাইভ-জি চলবে কিনা তা জানতে পারবেন কিভাবে ?

আমাদের লেখাগুলো ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না । আর যদি কোন প্রশ্ন অথবা জানার থাকে আপনি কমেন্ট করতে পারেন । 

>

অনুরোধ

আশা করি আমাদের এই লেখাটি আপনার ভাল লেগেছে । যদি আমরা আপনার সামান্য উপকারে আসি তবে আমাদের এই লেখাটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন । অথবা লাইক ,কমেন্ট করে আমাদের সাথে থাকুন । আমরা আরও লেখা নিয়ে হাজির হব ইনশাল্লাহ । আপনার কোন মূল্যবান মতামত অথবা কিছু জানার আগ্রহ থাকলে আমাদের জানাতে পারেন । আমরা অবশ্যই উত্তর দিতে সচেষ্ট থাকবো । আপনার মূল্যবান কোন লেখা আমাদের বিডি নিউজ ওয়ালে পোস্ট করতে চাইলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন অথবা মেইল করতে এইখানে ক্লিক করুন । আমাদের সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ

  • বিডি নিউজ ওয়াল ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন এবং যেকোনো প্রশ্ন করুতেঃ এখানে ক্লিক করুন
  • বিডি নিউজ ওয়াল ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এই পেজ ভিজিট করুন।
  • বিডি নিউজ ওয়াল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
  • গুগল নিউজে বিডি নিউজ ওয়াল সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
  • বিডি নিউজ ওয়াল সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন এই লিংকে

Leave a Reply

Your email address will not be published.